ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়!

ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়!

85 / 100

#ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়: আগের পোস্টে আমরা- ‘সেরা ৪টি ভিডিয়ো ইডিটিং অ্যাপ্লিকেশন!‘ সম্পর্কে জেনেছিলাম। ভিডিয়ো ইডিটিং তো শিখবেন, কিন্তু সেই ভিডিয়ো ইউটিউব প্ল্যাটফর্মে ছেড়ে ইনকাম করবেন কীভাবে?

ইউটিউবিং কী সেটা এই ২০২ সালে এসে কারও অজানা থাকার কথা না। তবুও যাদের অজানা তাদের জন্য বলে রাখি- আপনি ইউটিউবে একটি চ্যানেল ক্রিয়েট করে, নিজে ভিডিয়ো কন্টেন্ট বানিয়ে, সেগুলো সুন্দরভাবে ইডিট করে সেই চ্যানেলে আপ্লোড করতে পারেন। ইউটিউবে এই ভিডিয়ো আপ্লোড করাটাই মূলত ইউটিউবিং। ইউটিউবে যত ভিডিয়ো আছে, সবগুলো কোনো না কোনো চ্যানেল থেকে আপ্লোড করা হয়। তো, এই যে ভিডিয়ো আপ্লোড করা হয়, এগুলো শুধুমাত্র দর্শকের বিনোদনের জন্য না; এসব ভিডিয়ো থেকে ভিডিয়ো ক্রিয়েটররা আয় করে নেয় হাজার হাজার ডলার। কিন্তু কীভাবে আয় করে? তো আজকের পোস্টে আমরা জানব, ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়গুলো সম্পর্কে!

#আরও পড়ুন » টেকনিক্যাল বনাম অনপেইজ এসইও!

কীভাবে প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন; সেটা জানতে নিচের ভিডিয়োটি দেখতে পারেন:

ইউটিউব থেকে আয় করার অনেকগুলো উপায় রয়েছে। সেখান থেকে জনপ্রিয় ও জেনুইন উপায়গুলো সম্পর্কে এখন জানব আমরা। চলুন তাহলে শুরু করা যাক।

ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়গুলো

গুগল অ্যাডসেন্স (বিজ্ঞাপন):

অ্যাডসেন্স আশা করি সবাই চিনেন। অ্যাডসেন্স হলো গুগল কোম্পানির বিজ্ঞাপনী কার্যক্রম। ধরতে গেলে ৯৯% ইউটিউবারের প্রধান ইনকাম সোর্স হলো এই অ্যাডসেন্স। তবে আপনার ইউটিউব চ্যানেল থেকে অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে আয় করতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রামে অ্যাপ্রুভ পেতে হবে। আর অ্যাপ্রুভ পাওয়ার জন্য আপনাকে ইউটিউবের কিছু রিকোয়ারমেন্ট ফিলাপ করতে হবে। সেগুলো হলো- ১। আপনার চ্যানেলে ১০০০ সাবস্ক্রাইবার থাকতে হবে। ২। চ্যানেলের সব ভিডিয়োতে শেষ ১২ মাসে ৪০০০ ঘণ্টা ওয়াচটাইম থাকতে হবে। ৩। চ্যানেলে কোনো পলিসি ভায়োলেশন থাকতে পারবে না। এগুলো ফিলাপ করে আপনি অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রুভ নিতে পারলে [এটাকে মনিটাইজেশন বলে], আপনার ভিডিয়োগুলোতে গুগল অ্যাড শো করাবে এবং সেই অ্যাড থেকে আপনার ভালো পরিমাণ আয় হবে।

#আরও পড়ুন » সেরা ৪টি ভিডিয়ো ইডিটিং অ্যাপ্লিকেশন!

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং:

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংও যে অনলাইনের খুবই জনপ্রিয় একটি ইনকাম মাধ্যম সেটা অনেকেই জানেন! এই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে যে নিজের ওয়েবসাইট থাকতে হবে এমন কিন্তু না! আপনার একটা বড়ো ইউটিউব চ্যানেল থাকলে, সেটা দিয়ে আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করেও প্রচুর টাকা আয় করতে পারবেন। অনেক ইউটিউবারই তাদের চ্যানেলে অ্যামাজন কিংবা অন্যান্য অ্যাফিলিয়েট সাইটের অ্যাফিলিয়েট করে আয় করে থাকেন। এমনকি অনেক ইউটিউব চ্যানেল আছে যাদের অ্যাফিলিয়েট ইনকাম গুগল অ্যাডসেন্সের ইনকামের চেয়ে অনেক গুণ বেশি।

মার্চেন্ডাইজিং:

মার্চেন্ডাইজিং মানে হলো নিজের প্রোডাক্ট কিংবা সার্ভিসের বিপণন। আপনার ইউটিউব চ্যানেলকে যদি ভালোমতো গ্রো করাতে পারেন, তাহলে চ্যানেলের ভিডিয়োর মাধ্যমেই আপনি আপনার নিজস্ব পণ্য কিংবা সার্ভিস বিক্রি করতে পারবেন। অন্যান্য মাধ্যমের তুলনায় ইউটিউবে প্রোডাক্টের মার্কেটিং করা সহজ এবং সেগুলোর গ্রহণযোগ্যতা ভোক্তার কাছে বেশি। অনেকেই আছে যারা শুধুমাত্র ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমেই প্রতি মাসে লাখ-লাখ টাকার সেলস জেনেরেট করে।

স্পন্সরশিপ:

আপনার ইউটিউব চ্যানেলে যদি বড়ো একটা লয়্যাল ফ্যান/ফলোয়ার বেস তৈরি হয়, দেখবেন অনেক কোম্পানিই এসে আপনার ভিডিয়োকে স্পন্সর করছে। ইউটিউবারদের জন্য এটাও একটা খুবই ভালো ইনকাম সোর্স! স্পন্সরশিপ বিষয়টা আমি একটু সহজভাবে বুঝিয়ে বলি। ধরুন আপনার একটা টেক রিলেটেড চ্যানেল আছে, যেটাতে প্রায় এক লক্ষের কাছাকাছি সাবস্ক্রাইবার আছে। এদিকে একটা মোবাইল কোম্পানি নতুন মোবাইল লঞ্চ করেছে কিংবা কোনো মোবাইলের দোকান নতুন মডেলের মোবাইল আমদানি করেছে।

তারা এই প্রোডাক্টের প্রচারের জন্য আপনাকে একটা স্পন্সর ভিডিয়ো বানাতে বলল। আপনি আপনার রেগুলার ভিডিয়োর মাঝখানে সেই মোবাইল নিয়ে কিছু কথা বলে দিলেন কিংবা সেই মোবাইল নিয়ে একটা ফুল ডেডিকেটেড রিভিউ ভিডিয়ো বানিয়ে দিলেন! [রিভিউ করার জন্য মোবাইল কিংবা অন্য প্রোডাক্টটি, কোম্পানি আপনাকে আগেই দিয়ে দেবে!] এই ভিডিয়োর জন্য কোম্পানি আপনাকে ভালো অঙ্কের টাকা স্পন্সর কমিশন হিসেবে দিয়ে দেবে। আবার রিভিউর জন্য যে প্রোডাক্ট দেবে সেটাও আপনার জন্য ফ্রি গিফট! অনেক বাংলাদেশি ইউটিউবারই স্পন্সরশিপ থেকে অন্যান্য মাধ্যমের চেয়ে বেশি আয় করে।

#আরও পড়ুন » ১৫ হাজার টাকা বাজেটে সেরা ৩টি স্মার্টফোন!

এগুলো হলো নিজের ইউটিউব থেকে আয় করার বেশ কিছু জনপ্রিয় উপায়। আপনি ইউটিউবিং শুরু করলে আরও নতুন নতুন উপায় বের করে ফেলতে পারবেন। ইউটিউবিং বিষয়ে কোনো হেল্প লাগলে কমেন্ট করতে পারেন! এ ছাড়া ওপরে আমার চ্যানেলের লিংক দেওয়া আছে, আমার চ্যানেলে গেলে ইউটিউবিং বিষয়ে ফুল একটা প্লে লিস্ট পেয়ে যাবেন। ধন্যবাদ।

Share With Love:

মন্তব্য করুন: